করোনাভাইরাস বনাম আমাদের খামখেয়ালি

করোনাভাইরাস বনাম আমাদের খামখেয়ালি

দেশে মশার কামড়ে যেখানে ২ হাজার মানুষ মারা যায় সেখানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে কি অবস্থা হবে আল্লাই জানে। এতদিন হলো- সকল বন্দরগুলোতে থার্মাল স্ক্যানার মেশিন বসাতে পারেনি সরকার।

সাম্প্রতিক সময়ে আমি দেশের বাইরে গিয়েছিলাম। এ দেশে প্রবেশ করার সময় দেখলাম বন্দরগুলোতে কোন প্রকার তৎপরতা নেই। যেখানে অন্য দেশগুলোর বন্দরগুলোতে প্রবেশের সময় মালামাল থেকে শুরু করে সবকিছু স্পে করে। আর আমরা তাপমাত্রা যাচাই করেই দায়িত্ব শেষ!

আইইডিআর ভাষ্যমতে আজকে যাদের সনাক্ত করা হয়েছে তারা নিজেরাই যোগাযোগ করেছে আইইডিআর সাথে। প্রশ্ন হলো- যারা ভয়ে যোগাযোগ করছেনা তারা...?

ইতালি থেকে দেশে আসার সময় এয়ারপোর্টে যদি এই ভাইরাস ধরা পরত তাহলে তাঁর স্ত্রী আক্রান্ত হতনা।

খামখেয়ালি না করে এখনই ঝুঁকিপূর্ণ দেশ গুলোর সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা প্রয়োজন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা ও জনসমাগম এড়িয়ে চলা এখনই প্রয়োজন। সরকারের যদি মুজিবর্ষে করোনাভাইরাস মোকাবিলা করতে পারে এটিই হবে মুজিবর্ষের সফলতা।

তরুণ সাংবাদিক ও ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসাইন সাগরের ফেসবুক ওয়াল থেকে সংগৃহীত।