করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বপ্নে দেখা থানকুনি পাতা খাওয়ার বিষয়টি গুজব

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বপ্নে দেখা থানকুনি পাতা খাওয়ার বিষয়টি গুজব

‘করোনা ভাইরাসের ব্যাপারে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে থানকুনি পাতা খাওয়া নিয়ে যে স্বপ্নের কথা বলা হয়েছে সেটি সম্পূর্ণ গুজব। বুধবার (১৮ মার্চ) ভোরে ফজরের নামাজের পর থেকে থানকুনি পাতা খাওয়ার বিষয়টি বরিশাল বিভাগে পুরোপুরি আলোচনায় চলে আসে।

থানকুনি পাতার গুজবে রাতের ঘুম হারাম হয়েছে পুরো বরিশালের অনেক বাসিন্দাদের। কেউ বলছেন, ‘চরমোনাই পীর স্বপ্নে দেখেছেন, আবার কেউ বলছেন, ‘জৌনপুরী পীর স্বপ্ন দেখেছেন যে থানকুনি পাতা খেলে করোনাভাইরাস আর সংক্রমিত হবে না বরং মুক্তি মিলবে।

সেই গুজবে সাড়া দিয়ে বরিশালসহ আশপাশের সকল অঞ্চলের বাসীন্দারা রাতের আঁধার থেকেই থানকুনি পাতা সংগ্রহে নেমেছেন। অনেকে ইতিমধ্যে চিবিয়ে এই পাতার রস খেয়েছেন। তারা বলছেন, এই থানকুনি পাতাই করোনাভাইরাসের উত্তম প্রতিষেধক।

জানা গেছে, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে শুরু হয়েছে এই গুজব। বরিশালের অনেকেই ফেসবুকে এ নিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। কেউ কেউ থানকুনি পাতা সংগ্রহ করতে পেরেছেন জানিয়েও ছবি পোস্ট করেছেন। কেউ কেউ স্বজন এবং বন্ধুদের ফোন করে ঘুম ভাঙ্গিয়ে জরুরিভিত্তিতে থানকুনি পাতা সংগ্রহের তাগিদ দিয়েছেন।

ভোলার এক বাসিন্দা এ বিষয়ে জানান, ‘জৈনপুরী পীর সাহেব স্বপ্নে দেখেছেন যে, তিনটি থানকুনি পাতা আর এক গ্লাস পানি খেলে করোনাভাইরাস ছুঁতেও পারবে না। আর এই রাতের মধ্যেই পাতা তিনটি খেতে হবে। তাই তিনি এই গভীর রাতে থানকুনি পাতা সংগ্রহ করতে নেমেছিলেন।’

ফেসবুকে অবশ্য এই গুজব কানে তোলেননি স্থানীয়দের কেউ কেউ। তারা গুজবে কান না দিতে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তবে এমন গুজবের আসল উৎপত্তি কোথা থেকে তা কেউই জানে না।

করোনাভাইরাস নিয়ে বেশ কয়েকটি ভুল ও ভুয়া তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরপাক খাচ্ছে। বিশেষকরে ইউনিসেফের বরাত দিয়ে কিছু ভুল তথ্য প্রচারিত হচ্ছে। এ নিয়ে গবেষকরা সচেতনতামূলক পোস্ট দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে আরো দু’জনের মধ্যে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১১ জনে দাঁড়িয়েছে।

লেখক: মনিরুল ইসলাম ফরাজী।
একজন গণমাধ্যম কর্মী।